সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০১:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বারে কেঁদে কেঁদে ঈগল প্রতিকে ভোট চাইলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম নৌকায় ভোট দিয়েই মেঘনার সঠিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব… সেলিমা আহমাদ ঈগলে ভোট দিলে গোমতীর মাটি লুট জিবির নামে চাঁদাবাজি বন্ধ হবে: আবুল কালাম আজাদ দেবিদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ ব্রাজিলে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ২২ সিলেটে মসজিদের পুকুর থেকে ইমামের মরদেহ উদ্ধার সিলেটে সিএনজি স্টেশনের জেনারেটর বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭ বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিলের নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা মারা গেলেন লন্ডনের বাংলাদেশ হাইক‌মিশনের মিনিস্টার মুক্তি

গ্রেটার ম্যানচেস্টারে প্রথম হলুদ বাস

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০২৩
  • ১৮

ম্যানচেস্টারে নতুন বি নেটওয়ার্ক চালু হওয়ার ছয় মাস আগেই শুক্রবার থেকে গ্রেটার ম্যানচেস্টারের বাসগুলো হলুদ রং ধারণ করতে শুরু করেছে। সেপ্টেম্বর থেকে বোল্টন, উইগান এবং বুরি এবং স্যালফোর্ডের কিছু অংশে প্রথম পাবলিক কন্ট্রোলড বাস চালু করা হবে, ২০২৫ সালের মধ্যে পুরো নেটওয়ার্কটি ফ্র্যাঞ্চাইজি করা হবে।

গ্রেটার ম্যানচেস্টার জুড়ে ভাড়া একই মূল্যে সীমাবদ্ধ থাকবে, বাস নিয়মিত দেরিতে চললে বা না চললে অপারেটরদেরও জরিমানা করা হবে। বাস, ট্রাম এবং ভাড়ার বাইকগুলিতে একটি দৈনিক ক্যাপ চালু করা হবে যার অর্থ যাত্রীরা প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট মূল্যের জন্য তিনটিতে ট্যাপ-ইন এবং ট্যাপ-আউট করতে পারবেন।

গত বছর, গো নর্থ ওয়েস্ট প্রথম দুটি প্রধান ফ্র্যাঞ্চাইজি জিতেছিল যার অর্থ এই বছরের শেষের দিকে কোম্পানি বোল্টন এবং উইগানের বেশিরভাগ রুট পরিচালনা করবে, যেখানে ডায়মন্ড বি নেটওয়ার্কের এই প্রথম পর্যায়ে কিছু পরিষেবা পরিচালনার জন্য সাতটি ছোট চুক্তি পেয়েছে।

ট্রান্সপোর্ট ফর গ্রেটার ম্যানচেস্টার (টিএফজিএম) শত শত নতুন বৈদ্যুতিক বাসের অর্ডার দিয়েছে যা এই অঞ্চলগুলিতে চালু করা হবে। শেষে, সমস্ত বাসগুলি অডিও-ভিজুয়াল ঘোষণা এবং প্রতিবন্ধী যাত্রীদের জন্য আরও সহজলভ্য লে আউটের সাথে একই মানের হতে যাচ্ছে। বাস অপারেটররা তাদের বাসগুলোকে হলুদ রঙে ব্র্যান্ডিং করা শুরু করেছে।

পরিবহন কমিশনার ভার্নন এভারিট বলেন, নতুন চেহারার এই হলুদ বাসগুলো এখন নেটওয়ার্ক জুড়ে দেখা যাবে। গ্রেটার ম্যানচেস্টার সরকারের সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে, তাতে স্থানীয় ট্রেন সেবাকে বি নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ২০৩০ সাল থেকে যাত্রীরা কিছু রেল সেবা ব্যবহার করার সময় ট্যাপ-ইন এবং ট্যাপ-আউট করতে পারবেন। পাশাপাশি বাস ও ট্রামেও এই সুবিধা পাবেন যাত্রীরা।

ম্যানচেস্টারের মেয়র অ্যান্ডি বার্নহ্যাম বলছেন, ইচ্ছে ছিলো খুব দ্রুত কাজটি করার তবে পরিবহনের পরিবর্তনে সময়ের প্রয়োজন। আমরা খুব আলাদা একটা সিস্টেম থেকে এগোচ্ছি – পুরনো সিস্টেম যেটা এখন আমাদের হাতে এসেছে – যেটাতে একাধিক বাস আছে রাস্তায়।

তিনি বলেন, এখান থেকে একটি আধুনিক গণপরিবহন ব্যবস্থায় যেতে কয়েক সপ্তাহ, কয়েক মাসের মধ্যে যাওয়া যায় না। এটাতে বছরখানেক সময় লাগতে পারে। তবে আমরা এখন সত্যিই সেই পরিবর্তনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। গ্রেটার ম্যানচেস্টারের জন্য শ’খানেক বাস অর্ডার করা হয়েছে। তাই পরিবর্তন খুব দ্রুত আসতে যাচ্ছে।

তিনি আরোও বলেন, সেপ্টেম্বরে যখন আমরা পৌঁছব, তখন উইগান ও বোল্টনকে পরিষেবা দেওয়া রাস্তার বেশিরভাগ বাসই হবে নতুন বাস বা আধুনিক বাস যা রিব্র্যান্ড করা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved ©2023 -ওল্ডহাম বাংলা নিউজ |

সম্পাদক ও প্রকাশক: