মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বারে কেঁদে কেঁদে ঈগল প্রতিকে ভোট চাইলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম নৌকায় ভোট দিয়েই মেঘনার সঠিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব… সেলিমা আহমাদ ঈগলে ভোট দিলে গোমতীর মাটি লুট জিবির নামে চাঁদাবাজি বন্ধ হবে: আবুল কালাম আজাদ দেবিদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ ব্রাজিলে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ২২ সিলেটে মসজিদের পুকুর থেকে ইমামের মরদেহ উদ্ধার সিলেটে সিএনজি স্টেশনের জেনারেটর বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭ বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিলের নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা মারা গেলেন লন্ডনের বাংলাদেশ হাইক‌মিশনের মিনিস্টার মুক্তি

রাণীশকৈলে ইউএনও এবং মেয়রের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৪

 

 

ওহাব/

জেলা প্রতিনিধি,ঠাকুরগাঁও

 

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল পৌরসভার বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির স্টিভ ও পৌরসভার মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক। গত বৃহস্পতিবার উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভাকে কেন্দ্র করে তাঁরা পরস্পরের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনেন।

 

উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা শুরু হয়। ওই সভায় পৌরসভার মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন না। পৌরসভার বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সভায় অভিযোগ উঠলে ইউএনও সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির বলেন, এই

মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভায় মেয়র আসেন না, তাই পৌরসভার সমস্যাগুলো সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া যাচ্ছে না।

 

অন্যদিকে মেয়র বলছেন, সভায় উপস্থিত হয়ে কী লাভ? সভায় কথা বলে লাভ হয় না! সভায় পৌর শহরের বিভিন্ন স্থানে যানবাহন থেকে চাঁদাবাজি, উপজেলা পরিষদের প্রধান ফটকের সামনের পৌর মার্কেটের প্রবেশপথের সড়কের ফুটপাতে অবৈধ দোকানপাট বসানো, মহাসড়কের ওপর হাট বসানো, মাদক, চুরি, হাটের কাঁচামালের অতিরিক্ত টোল আদায়সহ বিভিন্ন বিষয় উঠে আসে। উপস্থিত ব্যক্তিরা পৌরসভা এলাকার এসব সমস্যা সমাধানের দাবি তোলেন।

 

এ সময় ইউএনও সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির বলেন, ‘সমস্যাগুলো যাঁর সহযোগিতায় নিরসনের উদ্যোগ নেওয়া হবে, পৌরসভার সেই মেয়রই গত কয়েকটি সভায় আসেননি। কেন তিনি বিগত কয়েকটি সভায় এবং এই সভায়ও উপস্থিত হননি, তা আমি জানি না।

 

ইউএনও আরও বলেন, পৌরসভার অভিযোগগুলো নিয়ম অনুযায়ী মেয়রকেই সমাধানের উদ্যোগ নিতে হবে। কোনো প্রশাসনিক সমস্যা থাকলে এবং তা সমাধানে মেয়র সহযোগিতা চাইলে প্রশাসন সহযোগিতা করতে সব সময় প্রস্তুত।

 

এবিষয়ে জানতে চাইলে পৌরসভার মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক বলেন, ওই সভায় উপস্থিত হয়ে কথা বলে কোনো লাভ হয় না। তাই সভায় উপস্থিত থাকার কোনো প্রয়োজন নেই। সভায় কথা বলা হয়, প্রস্তাব নেওয়া হয় কিন্তু কাজের কাজ কিছু হয় না। তাই অযথা সভায় উপস্থিত হয়ে সময় নষ্ট করে কী লাভ?

 

পৌরসভার মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাকের এমন মন্তব্যের ব্যাপারে জানতে চাইলে ইউএনও সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির স্টিভ বলেন, সভায় কথা বলে লাভ হয় না, এ কথা অযৌক্তিক।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved ©2023 -ওল্ডহাম বাংলা নিউজ |

সম্পাদক ও প্রকাশক: