সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বারে কেঁদে কেঁদে ঈগল প্রতিকে ভোট চাইলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম নৌকায় ভোট দিয়েই মেঘনার সঠিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব… সেলিমা আহমাদ ঈগলে ভোট দিলে গোমতীর মাটি লুট জিবির নামে চাঁদাবাজি বন্ধ হবে: আবুল কালাম আজাদ দেবিদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ ব্রাজিলে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ২২ সিলেটে মসজিদের পুকুর থেকে ইমামের মরদেহ উদ্ধার সিলেটে সিএনজি স্টেশনের জেনারেটর বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭ বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিলের নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা মারা গেলেন লন্ডনের বাংলাদেশ হাইক‌মিশনের মিনিস্টার মুক্তি

সাবনূরের মেডিকেল ভর্তির টাকা দিলেন জেলা প্রশাসক

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২
  • ৪০

 

 

নেছারাবাদ (পিরোজপুর) প্রতিনিধি

সাংবাদিক   মোঃ   নাফিস  ইকবাল

দরিদ্র দিনমজুরের মেয়ে মোসা. সাবনূর মেডিকেলের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পরও পড়াশোনার খরচ নিয়ে দুশ্চিন্তা দেখা দিয়েছিল। তবে পিরোজপুর জেলা প্রশাসকের কল্যাণে প্রাথমিকভাবে সেই শঙ্কা দূর হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান সাবনূরের ভর্তির খরচ বাবদ ২৫ হাজার টাকা দিয়েছেন।

এ ছাড়া নেছারাবাদ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় কয়েক গণ্যমান্য ব্যক্তি সাবনূরের পড়াশোনার খরচ চালাতে সহায়তা করার আশ্বাস দিয়েছেন। গতকাল সোমবার ‘মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেয়েও দুশ্চিন্তায় সাবনূর’ শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইনে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে পিরোজপুর জেলা প্রশাসকের পক্ষে নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারফ হোসেন তাঁর কার্যালয়ে সাবনূরকে ডেকে নিয়ে মেডিকেলে ভর্তির খরচ বাবদ ২৫ হাজার টাকা তুলে দেন। এ ছাড়া নেছারাবাদ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল হক সাবনূরকে নগদ ২৫ হাজার টাকা দিয়েছেন। পাশাপাশি মেডিকেলে পড়াশোনার খরচ দেওয়ারও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া একাধিক ব্যক্তি সাবনূরের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে সহযোগিতা করার কথা বলেছেন।

সাবনূর বলেন, মেডিকেলে ভর্তি ও পড়াশোনার খরচ নিয়ে দুশ্চিন্তা ছিল। এমন খবর প্রকাশের পর অনেকে ফোন করে সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন। পাশে থাকার সাহস জুগিয়েছেন। এ ছাড়া জেলা প্রশাসক ও উপজেলা চেয়ারম্যান ভর্তি ও পড়াশোনার খরচ বাবদ নগদ অর্থ দিয়ে সহায়তা করেছেন।

পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলার জলাবাড়ি ইউনিয়নের দক্ষিণ কামারকাঠি গ্রামের দিনমজুর বাবুল মোল্লার মেয়ে মোসা. সাবনূর। ২০১৯ সালে সাবনূর স্থানীয় কামারকাঠি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে এসএসসি ও ২০২১ সালে স্বরূপকাঠি শহীদ স্মৃতি ডিগ্রি কলেজ থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে এইচএসসি পাস করেন। ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় ৭৩ দশমিক ৫ স্কোর নিয়ে জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন তিনি।

সাবনূরের বাবা বাবুল মোল্লা হাঁপানির রোগী। মাঝেমধ্যে দিনমজুরের কাজ করেন। মা সাবিনা বেগম অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালান। সপ্তম শ্রেণি থেকেই টিউশনি করিয়ে নিজের পড়াশোনার খরচ চালিয়ে আসছেন সাবনূর।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান বলেন, ‘আমি গণমাধ্যমে সাবনূরের কথা জানতে পারি। এরপর সাবনূরের মেডিকেলের ভর্তির যাবতীয় খরচ আমি দিয়েছি। ভবিষ্যতেও তাঁর পড়াশোনার জন্য জেলা প্রশাসন পাশে থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved ©2023 -ওল্ডহাম বাংলা নিউজ |

সম্পাদক ও প্রকাশক: