রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৪:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বারে কেঁদে কেঁদে ঈগল প্রতিকে ভোট চাইলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম নৌকায় ভোট দিয়েই মেঘনার সঠিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব… সেলিমা আহমাদ ঈগলে ভোট দিলে গোমতীর মাটি লুট জিবির নামে চাঁদাবাজি বন্ধ হবে: আবুল কালাম আজাদ দেবিদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ ব্রাজিলে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ২২ সিলেটে মসজিদের পুকুর থেকে ইমামের মরদেহ উদ্ধার সিলেটে সিএনজি স্টেশনের জেনারেটর বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭ বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিলের নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা মারা গেলেন লন্ডনের বাংলাদেশ হাইক‌মিশনের মিনিস্টার মুক্তি

সিলেটে হত্যা মামলায় দুই আসামির মৃত্যুদণ্ড

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪৯

সিলেট: সিলেটের বিয়ানীবাজারে আজমল হত্যা মামলায় দুই আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করা হয়েছে।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৩য় আদালতের বিচারক মো. মিজানুর রহমান ভূইয়া এ রায় দেন।

 

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার কুতুবনগর গ্রামের আব্দুল খালিকের ছেলে রুহেল আহমদ কালা ও একই উপজেলার গুলসা গ্রামের বিজয় কান্তের ছেলে অপু দাস জাকারিয়া।

রায়ে দণ্ডিত দুই আসামিকে আরও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ড এবং ৩৯৭ ধারায় দশ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৩ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। রায় ঘোষণাকালে দুই আসামি কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

মামলার অপর দুই আসামি সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ থানার শান্তিনগর গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে মো. হোসাইন আহমদ ও মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল এলাকার নলুয়ারপাড় গ্রামের আলকাছ উদ্দিনের ছেলে জামাল উদ্দিন অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়াতে তাদের মামলা শিশু আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

মামলার বরাত দিয়ে আদালত সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ৩০ জানুয়ারি উপশহরের বাসা থেকে নিজ বাড়ি বিয়ানীবাজারের জলঢুপ গ্রামে যান আজমল হোসেন। সেখানে একটি মাদরাসা গড়ে তুলেছেন। মাদরাসার কাজের জন্য তিনি ৫০ হাজার টাকা সঙ্গে নিয়ে যান। এলাকায় একজন দানশীল ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত ছিলেন তিনি। এরপর ৩ ফেব্রুয়ারি সকালে মাদরাসার শিক্ষকরা তার বাড়িতে গেলে ঘরের মেঝেতে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় মামলা দায়ের হলে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় পুলিশ চার জনকে গ্রেফতার করে। দীর্ঘ বিচারিক কার্যক্রম চলাকালে ১৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত দুই জনের ফাঁসির আদেশ দেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রাসেল খাঁন ও অ্যাডভোকেট নুরুল আমীন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট জসীম উদ্দীন আহমদ এবং আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট আলী হায়দার মামলাটি পরিচালনা করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved ©2023 -ওল্ডহাম বাংলা নিউজ |

সম্পাদক ও প্রকাশক: