বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১২:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বারে কেঁদে কেঁদে ঈগল প্রতিকে ভোট চাইলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম নৌকায় ভোট দিয়েই মেঘনার সঠিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব… সেলিমা আহমাদ ঈগলে ভোট দিলে গোমতীর মাটি লুট জিবির নামে চাঁদাবাজি বন্ধ হবে: আবুল কালাম আজাদ দেবিদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ ব্রাজিলে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ২২ সিলেটে মসজিদের পুকুর থেকে ইমামের মরদেহ উদ্ধার সিলেটে সিএনজি স্টেশনের জেনারেটর বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭ বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিলের নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা মারা গেলেন লন্ডনের বাংলাদেশ হাইক‌মিশনের মিনিস্টার মুক্তি

কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৪০

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
কুমিল্লার কোতয়ালী মডেল থানার এক –পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে একটি পরিবারকে মাদক দিয়ে হয়রানি ও মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শুক্রবার বিকালে (০১ ডিসেম্বর) কুমিল্লা নগরীর একটি রেস্তোরাঁ সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করে ভুক্তভোগী ওই পরিবার।

কুমিল্লা আর্দশ সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামে পরিবারের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভুক্তভোগী আক্তার হোসেনের ছেলে মেহিদী হাসান। এসময় আক্তার হোসেনের স্ত্রী হাসিনা বেগম উপস্থিত ছিলেন।

মেহিদী হাসান বলেন,গত বুধবার রাতে আমার চা দোকানে মফিজ স্যার আইসা জিজ্ঞেস করতেছে,এই তুমি কি আকতারের ছেলে। আমি বললাম, হ্যা। বললো, কি মোবাইল চালাও এইটা, দেখি। তোমার লগে মোবাইলের ভেজাল আছে। তোমারে ২০০ কেজি গাঁজা দিয়া আমি চালান দিয়া দিমু। বাড়ি থেকে ২ লাখ টাকা আন। এইটা বইলা আমারে ৫/৬ টা বারি দিয়ে ফেলছে। আমি বলছি,আমি এত টাকা কোথায় পাবো আমার কাছে টাকা নাই। আমি দিন আইনা দিন খাই।
উনি আমারে বলে, তোর জন্য তো তোর বাবা মা বিদেশের লাইন দিছে। ২ লাখ টাকা আছে তোর ঘরে। আর নয়তো তোরে গাঁজা দিয়ে চালান দিয়ে দিবো। পরে আমাকে পুলিশের গাড়িতে তুলে আব্বারে কল দেয়, আব্বা আসে, তখন আব্বারে থাপ্পড় দিয়ে গাড়িতে তুলে আমারে নামাই দিছে। পরে চানপুর ব্রীজের গোড়ায় আমাদের ডেকে ৫ লাখ টাকা আনতে বলে, আর নয়তো গাঁজা দিয়ে চালান দিয়ে দিবো।

আমরা কিছুই করি নাই, আমরা এত টাকা কোথায় থেকে আনবো। আমি দোকানদারি করি। বর্ডার সাইড এখানে। তাই অনেকে এখানে নেশা করতে আসে। তাই পুলিশের সোর্সরা এসে পকেট হাতিয়ে টাকা পয়সা নিয়ে চলে যায়। টাকা না দিলে, মাল দিয়ে চালান করে দেয়। মফিজ স্যারে অনেক অত্যাচার করতেছে। যারা মাদক ব্যবসা বাণিজ্য করে তারা সুখে শান্তিতে থাকে। যারা জায়গা বিক্রি করে সন্তানদের বিদেশ পাঠাইবো, তাদের টাকা নিয়ে যায় ওরা। আমারে বলে, ওমুকেরে ধরাই দিবি নি, তাইলে তোরে ছাইড়া দিবো। আর না ধরাইলে, তোরে ২০০ কেজি দিয়ে চালান দিয়ে দিবো। পিটাইয়া হাত পা ভাইঙ্গা তোরে চালান দিয়ে দিবো।

এদিকে বর্ডার সাইডে আইসা দৈনিক টাকা ইনকাম করে যায় তারা। ওদের সাথে ৪/৫ জন সোর্স থাকে। হ্যান্ডকাফ থাকে সোর্সের কাছে। আমরা মফিজ স্যারের বিচার চাই। উনি ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে মালামাল পার করে দেয়। আমি প্রশাসনের কাছে এর বিচার চাই।

এদিকে মামলার সূত্রে জানা যায়, গত ২৯ নভেম্বর আর্দশ সদর উপজেলার আর্দশ সদর উপজেলর আমড়াতলী ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের থেকে ১২৬ কেজি গাঁজাসহ আটক দেখায় কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার এস আই শেখ মফিজুর রহমান। পরে ৩/৪ জনকে অজ্ঞাতনামা নাম উল্লখ্য করে মাদক মামলা দায়ের করে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার এস আই শেখ মফিজুর রহমান বলেন, আসামির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে, আমরা র্সোসের মাধ্যমে তথ্য পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই, আসামি আক্তার নিজে স্বীকার করেছে, তার দেখানো স্থান থেকে আমরা গাঁজা উদ্ধার করি। ঘটনার সময় এলাকাবাসীর বেশ কয়েকজন সাক্ষী রয়েছে, তার বিরুদ্ধে এই মামলা ছাড়া দুই মাদক মামলা রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আপনার তদন্ত করে দেখেন, আমরা সবসময় মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করি ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved ©2023 -ওল্ডহাম বাংলা নিউজ |

সম্পাদক ও প্রকাশক: