মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দেবিদ্বারে কেঁদে কেঁদে ঈগল প্রতিকে ভোট চাইলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম নৌকায় ভোট দিয়েই মেঘনার সঠিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব… সেলিমা আহমাদ ঈগলে ভোট দিলে গোমতীর মাটি লুট জিবির নামে চাঁদাবাজি বন্ধ হবে: আবুল কালাম আজাদ দেবিদ্বারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লায় পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ ব্রাজিলে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ২২ সিলেটে মসজিদের পুকুর থেকে ইমামের মরদেহ উদ্ধার সিলেটে সিএনজি স্টেশনের জেনারেটর বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭ বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিলের নিজেদের দেউলিয়া ঘোষণা মারা গেলেন লন্ডনের বাংলাদেশ হাইক‌মিশনের মিনিস্টার মুক্তি

৬ বছরে ব্রিটেনে এসেছে ১ লাখেরও বেশি অভিবাসী

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৬

২০১৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত ফ্রান্স এবং যুক্তরাজ্যের মধ্যে অবস্থিত ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিয়ে ১ লাখেরও বেশি অনিয়মিত অভিবাসী যুক্তরাজ্যে পৌঁছেছে বলে জানা গেছে। এরই মধ্যে চলতি সপ্তাহের বুধবার এবং বৃহস্পতিবার ফরাসি উপকূল থেকে ১০০ জনেরও বেশি অভিবাসীকে উদ্ধার করেছে স্থানীয় ফরাসি কর্তৃপক্ষ।

ব্রিটিশ হোম অফিসের পরিসংখ্যান বলছে, বৃহস্পতিবার ১৪টি নৌকায় চড়ে যুক্তরাজ্যে উপকূলে পৌঁছেছেন ৭৫৫ জন অনিয়মিত অভিবাসী।

এ পর্যন্ত ২০১৮ সাল থেকে দেশটিতে চ্যানেল পাড়ি দিয়ে আসা অভিবাসীদের সংখ্যা এক লাখে পৌঁছালো। তাছাড়া, ২০২৩ সালের শুরু থেকে একদিনে প্রবেশ করা অভিবাসীদের পরিসংখ্যানে ৭৫৫ জন যা এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

মঙ্গলবার পর্যন্ত যুক্তরাজ্য সরকারের প্রকাশিত পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ২০১৮ সাল থেকে ৯৯ হাজার ৯৬০ জন অনিয়মিত অভিবাসী ছোট নৌকায় চ্যানলে পাড়ি দিতে সক্ষম হয়েছেন।

ব্রিটিশ পরিসংখ্যান বলছে, গত ২০২২ সালও অভিবাসী আগমনের ক্ষেত্রে রেকর্ড বছর ছিল। যেখানে ৪৫ হাজার ৭৫৫ জন ছোট নৌকায় দেশটিতে এসেছিলেন৷ এদিকে, চলতি বছরের শুরু থেকে ইতিমধ্যে ব্রিটিশ ভূখণ্ডে পা রেখেছেন ১৫ হাজার ৮১ জন অনিয়মিত অভিবাসী৷

প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক অভিবাসী নৌকার প্রবাহ বন্ধ করাকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন। যদিও চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত চ্যানেল পাড়ি দেয়ার হার গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ২০ শতাংশ কমে এসেছিল। তবে নতুন করে এই পরিসংখ্যান আবার বাড়তে শুরু করেছে।

চ্যানেল এবং উত্তর সাগরের স্থানীয় ফরাসি মেরিটাইম পরিসংখ্যান অনুসারে, ১৮০টি নৌকায় প্রায় আট হাজার ১৫০ জন অভিবাসী জুনের শুরু থেকে জুলাইয়ের শেষের মধ্যে চ্যানেল অতিক্রম করার চেষ্টা করেছেন। ২০২২ সালের একই সময়ে এই সংখ্যাটি ছিল প্রায় সাত হাজার ৭০০ জন।

লন্ডন এবং প্যারিস যৌথভাবে চ্যানেল পারাপার বন্ধ করার চেষ্টা করছে। ফরাসি উপকূলে পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতি ও নজরদারি প্রযুক্তি বাড়ানো হয়েছে।

চলতি মাসের শুরুতে উপকূলে সক্রিয় একটি ফরাসি পুলিশের এক সূত্র বলেন, “আমরা যত বেশি সদস্য বাড়াচ্ছি, অভিবাসীদের সংখ্যা ততই বাড়ছে। চ্যানলে পারাপারের চেষ্টা এখনও ‘তীব্র’ বলেও স্বীকার করে সূত্রটি।

এ সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, “এটা এমন নয় যে আমরা এখানে এসেছি বলে অভিবাসীরা যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। মানব পাচারকারীরা কৌশল পরিবর্তন করে অন্যদিকে যাওয়ার চেষ্টা করছেন৷ যাতে করে অভিযানে শুধু কয়েকটি নৌকা আটকানো যায়।”

স্থানীয় অভিবাসন সংস্থা ইতুপিয়া৫৬-এর সমন্বয়কারী অ্যামেলি মোয়ার্ট বলেন, ‘‘ পুলিশের নজরদারি অপেক্ষমাণ অভিবাসীদের সংকল্পকে দুর্বল করে না। সংশ্লিষ্টদের শেষ লক্ষ্য থাকে চ্যানেল অতিক্রম করা। আতঙ্কিত হলেও তারা যাত্রা করবে। যতক্ষণ না যুক্তরাজ্যের দিকে এসব ব্যক্তিদের জন্য নিরাপদ অভিবাসন রুট এবং ফ্রান্সে মর্যাদাপূর্ণ অভ্যর্থনা ব্যবস্থা নেয়া হবে না, ততদিন এই অঞ্চলে দুঃখজনক ঘটনা ঘটবে।”

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved ©2023 -ওল্ডহাম বাংলা নিউজ |

সম্পাদক ও প্রকাশক: